মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ অক্টোবর ২০১৬

৬ষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (মুক্তারপুর সেতু)

সমন্বিত যোগাযোগ ব্যবস্থার অংশ হিসাবে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ মহাসড়কে ধলেশ্বরী নদীর উপরে ৬ষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (মুক্তারপুর সেতু) নির্মাণের লক্ষে১১/০১/২০০২ইং এবং ২৪/১২/২০০২ইং তারিখে বাংলাদেশ এবং গণচীনের মধ্যে অর্থনৈতিক এবং কারিগরী সমঝোতা স্বাক্ষর হয়। চীন সরকার “চায়না রোড এন্ড ব্রীজ কর্পোরেশন (CRBC)” কে কার্যসম্পাদনকারী সংস্থা হিসেবে মনোনীত করে। ২৭/১২/২০০৪ তারিখে JMBA এবং CRBC এর মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষর হয়। এটা আশা করা যায ২০০৮ সালের মধ্যে প্রকল্পের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে। ৭ জুলাই, ২০০৪ এ প্রকল্পের “ প্রজেক্ট কনস্পেট পেপার (PCP)” অনুমোদিত হয়। এই সেতুর কাজ সম্পন্ন হলে ঢাকা এবং মুন্সিগঞ্জ জেলার মধ্যে স্থায়ী যোগাযোগ স্হাপিত হবে, যেখান থেকে রাজধানীর প্রধান কৃষি পণ্য সরবরাহ হয়ে থাকে। যখন প্রস্তাবিত মুক্তারপুর সেতুর কাজ সম্পন্ন হবে, তখন তা দেশের অর্থনীতিতে প্রভূত পরিবর্তন বয়ে আনবে।

মুন্সিগঞ্জ জেলা ঢাকা হতে ৩০ কি:মি: দক্ষিনে অবস্থিত ধলেশ্বরী নদী দ্বারা বিচ্ছিন্ন। এই জেলায় ৬টি উপজেলা, ৬৭টি ইউনিয়ন পরিষদ, ৯০৬টি গ্রাম, ১৮টি ওয়ার্ড, ৭৩টি মহল্লা এবং ২টি পৌরসভা রয়েছে। প্রত্নতাত্বিক ঐতিহ্যের জন্যও এই জেলা বিখ্যাত। ঢাকা শহরে জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে এই সেতুর আশেপাশে এলাকার সাথে সমন্বিত যোগাযোগ ব্যবস্থার সৃষ্টি করবে।

ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কে ধলেশ্বরী নদীর উপর মুক্তারপুর এলাকায় ৬ষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নির্মাণ কাজ জুলাই, ২০০৫ এ শুরু হয় এবং জানুয়ারী, ২০০৮ এ নির্ধারিত সময়ের ৬ মাস আগেই এর নির্মাণ কাজ সম্পাদন হয়। প্রকল্পের মোট খরচ হয় ২০৮.৩৫ কোটি টাকা, যার ১২৯.২০ কোটি টাকা চীন সরকার অনুদান ও সুদ মুক্ত ঋন হিসাবে এবং বাকী ৭৯.১৫ কোটি টাকা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বহন করে। সেতুর দৈর্ঘ্য ১৫২ মি. এবং প্রস্থ ১০মি.। এই প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ এবং মুন্সীগঞ্জ জেলা উপকৃত হয়েছে।

 

সেতুর প্রধান বৈশিষ্ট্য সমূহ

সেতুর ধরন : প্রিস্ট্রেস কনক্রিট/বক্স গার্ডার
দৈর্ঘ্য : ১৫১ মি.
প্রস্থ : ১০মি.
লেন সংখ্যা : ০২(দুই)
নৌ- চালনার জন্য উলম্ব বিস্তৃতি : ১৮.২৯মি.
নৌ- চালনার আনুভূমিক বিস্তৃতি : ৭৬.২মি.
স্প্যান সংখ্যা : ৩৭টি
অ্যাবিচমেন্ট সংখ্যা :
পায়ার সংখ্যা : ৩৬টি
ফাউন্ডেশেন টাইপ : পাইল ফাউন্ডেশেন
পাইলের সংখ্যা : ১২৬টি
সংযোগ সড়কের দৈর্ঘ্য : ৬৭৩.২৩৫মি.
সংযোগ সড়কের প্রস্থ : ১২.৫মি.
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ব্যয় :  
মোট প্রকল্প ব্যয় : ২০৮.৩৫ কোটি টাকা
প্রকল্প সাহায্য : ১২৯.২০ কোটি টাকা
বাংলাদেশ সরকারের ব্যায়িত অর্থ : ৭৯.১৫ কোটি টাকা
প্রকল্প শুরু : জুলাই, ২০০৫
প্রকল্প সম্পন্ন : জানুয়ারী ২০০৮
প্রকল্প সম্পন্নকারী সংস্থা : চায়না রোড এন্ড ব্রীজ কর্পোরেশন (সিআরবিসি)
নির্বাহী সংস্থা : বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ

Share with :